নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে | Voter ID Card Check

নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে?এমন প্রশ্ন এখন অনেক বাংলাদেশি ভোটারদের মনে। নিজে নিজে অনলাইন থেকে আইডি কার্ড দেখতে এবং ডাউনলোড করতে লোকেদের এই চেষ্টা। লোকেদের এই চেষ্টাকে আরও সহজ করতে অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগ ও ওয়েবসাইট গুলো লোকেদের সাহায্য করে আসছে।

বর্তমানে লোকেদের অনলাইনের প্রতি আগ্রহ বেড়ে চলেছে। সেইসাথে স্বল্প সময়ে সঠিক তথ্য দেওয়ার জন্য আপনি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম গুলিকে নিজের বন্ধু ভাবতে পারেন।

কেননা পূর্বে আপনার কোন প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করার জন্য অভিজ্ঞ লোকদের সন্ধানে দিনের পর দিন মাসের পর মাস কাটিয়ে দিয়েছেন।

বর্তমানে তা অনলাইনে গুগল সার্চ করলে আপনার সামনে হাজির হবে হাজারো উত্তর, যেখান থেকে আপনি সঠিক আপনি খুঁজে নিতে পারেন।

অনলাইন শপিং থেকে অনলাইনে মোবাইল রিচার্জ সহ বেশ কিছু কাজ এখন ঘরে বসেই করছে, কেননা নিজেদের ছোটখাটো প্রয়োজনীয় কাজগুলো অনলাইনে সেরে ফেলা সম্ভব।  

ঘরে বসে অনলাইনে নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে

আমি আগেই বলেছি বর্তমান সময়ে অনলাইন আমাদের অনেক কাজের নিয়মিত বন্ধু।

বিশ্ব মহামারী করোনাভাইরাসের প্রভাবে বর্তমানে বিশ্বে অনেক কিছুই লোক এখন ঘরে বসে করতে চাচ্ছে।

তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বাংলাদেশের লোকেদের জন্ম নিবন্ধন চেক এবং ভোটার আইডি কার্ড চেক অনলাইন।

নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে এর আরো কিছু কারণ রয়েছে।

প্রধান কারন বাংলাদেশের বিভিন্ন অফিসগুলোতেউপস্থিত হয় এবং তার আইডি কার্ড সম্পর্কে জানা অনেক সময় সাপেক্ষ।  

এছাড়াও বাংলাদেশের নিত্যসঙ্গী যানজট আমাদের দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে যার কারণে লোকেরা দিনে দিনে অনলাইন পার্থক্যগুলো বেশি ব্যবহার করছেন।

অনলাইন প্লাটফর্ম গুলো ব্যবহারে নিজের ভোটার আইডি কার্ড থেকে শুরু করে নিজের জন্ম নিবন্ধন চেক করা অনেক সহজ হয়ে গেছে।   

এই পোস্টে আমরা আপনাদের বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের অধিকার ভোটার আইডি কার্ড কিভাবে অনলাইনে দেখবেন এই বিষয়ে জানাবো এবং সেইসাথে ভোটার আইডি কার্ডের সংশোধন পদ্ধতি সমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। 

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার জন্য এই পোস্টটি আপনাকে ভালোভাবে পড়তে হবে এবং বুঝার চেষ্টা করতে হবে কোন বিষয়টি কিভাবে অনুসরণ করবেন।

নতুন আইডি কার্ড কিভাবে দেখব

অনলাইনে বাংলাদেশের যেকোন আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র সম্পর্কে কোন প্রকার তথ্য জানতে হলে আপনাকে প্রথমে যেতে হবে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন ওয়েবসাইটে।  

ভোটার আইডি কার্ড সংক্রান্ত  যে কোন তথ্য-উপাত্ত জানতে প্রথমে নির্বাচন কমিশন প্রদত্ত ওয়েবসাইটটিতে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে নির্বাচন কমিশন সাইটে রেজিস্ট্রেশন করবেন।

  • প্রথমে আপনি নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে চলে যেতে এখানে ক্লিক করুন। 
  • রেজিস্ট্রেশন বাটনে ক্লিক করে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন পেজটি লোড হতে সময় লাগবে।
ঘরে বসে অনলাইনে নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে
ঘরে বসে অনলাইনে নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে
  • একাউন্ট না থাকলে “রেজিস্ট্রেশন করুন” বাটনে ক্লিক করুন। ( মনে রাখবেন আপনার কাছে যদি জাতীয় পরিচয় পত্র থাকে তবেই আপনি রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। )
  •  একাউন্ট থাকলে নতুন ভোটার আইডি কার্ডের জন্য “আবেদন করুন” বাটনে ক্লিক করুন। 

যেহেতু আপনি প্রথম বার ওয়েবসাইটে ভিজিট করছেন তাই আপনার কাছে একাউন্ট থাকবে না তাই একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন বাটনে ক্লিক করার মাধ্যমে একটি একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করে নিন।

আরও পড়ুনঃ জন্ম নিবন্ধন যাচাই চেক অনলাইনে

এই ওয়েবসাইটে সফলভাবে রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন হলে আপনি সহজেই আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন।

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি এবং ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ওয়েবসাইটটি প্রদান করা হয়েছে সেই সাথে এন আইডি কার্ডের অনলাইন চেক ও যাচাই করার জন্য।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম ২০২২

এই ওয়েবসাইডে নতুন ভোটার আইডি কার্ডের জন্য আপনি একই অ্যাকাউন্ট থেকে আবেদন করতে পারবেন। 

অন্য যে কোন আইডি কার্ডের তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হওয়ার পর আপনি সহজেই নতুন নিবন্ধন বাটনটি দেখতে পাবেন।

এখানে ক্লিক করে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সাবমিট করে সহজেই আপনি অনলাইন থেকে নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

  • প্রথমেই আপনাকে নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ এর ওয়েবসাইটে যেতে হবে।  সেখান থেকে আপনাকে “নতুন নিবন্ধন” এই জায়গাতে ক্লিক করতে হবে।
  • ক্লিক করার পর আপনাকে বিস্তারিত কিছু ইনফরমেশন বা তথ্য দেওয়া হবে।
  • সে তথ্য গুলো ভালভাবে পড়বেন কারণ সেই তথ্যগুলো পড়ার কারণে আপনার আইডি কার্ড পেতে কোন ধরনের সমস্যা থেকে  সতর্ক থাকবেন।
  •  তারপরে নিচের অংশে লেখা “আমি রাজি নিবন্ধন ফরম পূরণ করতে চাই”  এই লেখাটির উপর ক্লিক করার পরে আপনাকে আপনার বিভিন্ন তথ্য গুলি দেওয়ার জন্য বলবে।
  • তার ধারাবাহিক ভাবে আপনি এই ফর্মটা পূরণ করে দিলেই  হবে।
  • আপনি যে আবেদন করেছেন তার জন্য আপনাকে কি প্রমাণ স্বরূপ পিডিএফ ফাইল দিতে পারে।
  • সে পিডিএফ ফাইলটি আপনি পরবর্তীতে কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে ব্যবহার করতে পারবেন। আপনাকে কিছুদিনের মধ্যে আপনার আইডি কার্ড টা দিয়ে দেবে।

আপনার নতুন আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র কিভাবে দেখবেন

একটি নতুন ভোটার আইডি কার্ড আবেদন পরবর্তী আপনি চাইলে নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য সমূহ পুনরায় দেখতে পারবেন। 

ভোটার আইডি কার্ড আবেদনের সময় ফর্ম এর নিচের অংশটুকু গ্রাহককে দেয়া হয়। ফর্ম স্লিপের নিচের অংশে বেশকিছু তথ্যে রয়েছে এই তথ্যগুলো বাংলাদেশ জাতীয় নির্বাচন কমিশন প্রদত্ত ওয়েবসাইটে প্রদানের মাধ্যমে আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সম্পর্কে জানতে পারেন।

৮ ডিজিটের ভোটার আইডি কার্ড স্লিপ নাম্বার টি ব্যবহার করে আপনি সহজেই আপনার ভোটার নিবন্ধন সম্পর্কে জানতে পারেন.

এবং আপনার ভোটার আইডি কার্ডের তথ্যগুলো যদি ডাটাবেজে আপলোড করা হয় তবে ভোটার আইডি কার্ড নম্বর ও পেয়ে যেতে পারেন।

এছাড়াও আপনি যদি আপনার ব্যবহার করা মোবাইল নাম্বারটি জাতীয় পরিচয় পত্র নিবন্ধনের সময় প্রদান করে থাকেন তবে আপনি নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে নিয়ে ভাববেন না। 

কেননা আপনি আপনার মোবাইল নাম্বার টি ব্যবহার করেও ভোটার আইডি কার্ড সম্পর্কে সহজেই তথ্য জানতে পারেন।

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি দেখতে

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি দেখতে 
ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি দেখতে
  • নিজেই নিজের ভোটার নতুন আইডি কার্ড দেখার বা জাতীয় পত্র দেখার জন্য আপনাকে নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ ওয়েবসাইট টি তে যেতে হবে।
  • ওয়েবসাইটটিতে যাওয়ার পর আপনি উপরের দিকে মেনুবারে দেখতে পারবেন “অন্যান্য তথ্য”।
  • এ জায়গাটা ক্লিক করলে আপনি নিচের দিকে একটি লিস্ট দেখতে পারবেন।
  • প্রথমে লেখা আছে “ভোটার তথ্য”। প্রত্যয়ের মধ্যে ক্লিক করতে হবে আপনাকে।
  • ভোটার তথ্য  এর মধ্যে ক্লিক করার পর আপনাকে একটি ফর্ম দেওয়া হবে।
  • সে ফরমের মধ্যে আপনাকে অবশ্যই যদি আপনি  ফর্ম নাম্বার দিয়ে আপনার ভোটার কার্ডটি দেখতে চান তাহলে  “ফর্ম নম্বর” এই অপশনটিতে ক্লিক করে দেবেন।
  •  আর যদি আপনি এনআইডি কার্ড দিয়ে আপনার আইডি কার্ডটি দেখতে চান তাহলে আপনি এনআইডি কার্ডের নম্বর দেওয়ার জন্য “এনআইডি” নম্বর  এই অপশনটি সিলেক্ট করে দেবেন।
  • তারপর আপনি যে ফরমটি পূরণ করে দেওয়ার পর নিচে দেখবেন একটি লেখা আছে ওই লেখাটির পাশের বক্সে লিখে দিতে হবে।
  • সম্পূর্ণ ফরমটি পূরণ করার পর আপনি “ভোটার তথ্য দেখুন” বাটনে ক্লিক করবেন।
  • ক্লিক করার পর আপনাকে আপনার সকল ইনফরমেশন গুলি দেখানো হবে।
  • এই জায়গা থেকেই আপনি আপনার আইডি কার্ড দেখতে পারবেন।
  • আপনার ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন  এবং আপনি স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।
  • এজন্য নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে লিখতেছি না।

কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র বা আইডি কার্ডের ভুল ত্রুটি সংশোধন করবেন?

বাংলাদেশ সরকার জনগণের ভোগান্তি কমাতে এনআইডি কার্ডের ভুল ত্রুটিগুলো সমাধানের অনলাইন চেক করার পদ্ধতি বের করেছে। 

ভোটার আইডি কার্ড সংক্রান্ত যে কোন ভুল-ত্রুটি অনলাইনে সংশোধন করতে চাইলে সরাসরি ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে আপনার তথ্যগুলো উপস্থাপন করতে হবে।

আপনার ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য গুলি সংশোধন করার জন্য ইউনিয়ন পরিষদ আপনার করা আবেদনটি জমা দিবেন। 

আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য সংশোধন করার জন্য আপনার আবেদন যাচাই-বাছাই মাধ্যমে সংশোধন করার চেষ্টা করবে উক্ত কাজগুলি আপনি অনলাইনে আয় করতে পারেন। 

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের জন্য আপনাকে বাংলাদেশ জাতীয় নির্বাচন কর্তৃক প্রদত্ত ওয়েব সাইটটি ভিজিট করে আপনার সকল তথ্যগুলো প্রদান করা আবশ্যক।

আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের স্মার্ট কার্ড কিভাবে করবেন?

প্রিয় ভিজিটর আপনি নিশ্চয়ই জানেন বাংলাদেশ দুই ধরনের এনআইডি কার্ড বর্তমানে চলমান রয়েছে। 

একটি হচ্ছে নর্মাল ( পুরাতন ) আইডি কার্ড অন্যটি হচ্ছে স্মার্ট (ডিজিটাল) এনআইডি কার্ড।

 স্মার্ট আইডি কার্ড এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকার উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে গ্রাহকদের তথ্য কে আরো বেশি সুরক্ষিত করার চেষ্টা করেছে।

একটি স্মার্ট কার্ডের মাধ্যমে গ্রাহকদের বা দেশের জনগণকে আরো বেশি সুরক্ষা প্রদানের উদ্দেশ্যে সরকার চেষ্টা করে যাচ্ছে। 

আপনি নর্মাল আইডি কার্ড কিভাবে চেক করেন একটি স্মার্ট কার্ডে কি পদ্ধতি অবলম্বন করে অনলাইন থেকে সহজেই চেক করতে পারবেন এবং সংশোধন করতে পারবেন।

সেই সাথে নতুন স্মার্ট কার্ড তৈরি করার জন্য আপনি অনলাইন থেকেই আবেদন করতে পারবেন। 

চলুন দেখে নেই কিভাবে একটি নতুন স্মার্ট কার্ডের জন্য আবেদন করবেন অনলাইনে।  

এমনকি আপনারা যারা নতুন স্মার্ট আইডি কার্ডের জন্যে এপ্লাই করেছেন তারা চাইলে সরাসরি স্মার্ট কার্ড তুলে নিয়ে আসতে পারবেন। 

  • তার জন্য আপনাকে প্রথমেই যেতে হবে  নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ ওয়েবসাইট।  
  • উপরের মেনু থেকে “অন্যান্য তথ্য” এই অপশনটিতে ক্লিক করে দেখতে পারবেন  তিন নম্বর অফারটিতে “স্মার্ট কার্ড বিতরণের তথ্য” একটি অপশন রয়েছে।  
  • এই অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনাকে একটি ফর্ম দেওয়া হবে যেখানে আপনার আইডি কার্ডের নম্বর এবং জন্মতারিখ দিতে হবে।  
  • তার নিচে একটি ক্যাপচা দেওয়া হবে পাশের লেখাটা ভালোভাবে বুঝে ক্যাপচাটি পূরণ করে দিলেই ফরমটি পূরণ হয়ে যাবে।  
  • এরপর নিচের দিকে “ভোটার তথ্য দেখুন”  অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনাকে সকল প্রকার তথ্য দেওয়া হবে।

নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো কিভাবে অনলাইনে?

  • সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকার অনলাইনে তথ্য যাচাই করার ওয়েবসাইট এর কিছুটা পরিবর্তন করছে।
  • তাই অনেক সময় অনলাইন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে সমস্যায় পড়ছেন।
  • যখনই আমাদের কাছে নতুন কোন তথ্য আসবে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব অপেক্ষা করুন।

আরও পড়ুনঃ 

উপসংহার 

তথাপিও এই বিষয়ে আপনার কোন প্রশ্ন করণীয় থাকলে আমাদের কমেন্ট করে জানান আপনার মূল্যবান কমেন্টের উত্তর যথাসময়ে দেওয়ার চেষ্টা করব।

পোস্টটি ভালো লাগলে আপনার আশেপাশের বন্ধু স্বজন ও আত্মীয়দের জানান যারা আইডি কার্ড নিয়ে সমস্যায় রয়েছেন তাদের সমস্যার সমাধানে কাজ করবে এই পোস্টটি।

টেলিকম অপারেটর অফার, মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ও চমকপ্রদ এসএমএস সম্পর্কে জানতে আমাদের সঙ্গে থাকুন এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। 

Leave a Comment

fifteen − fourteen =